রাত ৪:৫৩ শনিবার ২৩ নভেম্বর, ২০১৯


বৃষ্টির মধ্যেই অনুশীলন টাইগারদের

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : June 14, 2019 , 10:43 pm
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ইংল্যান্ডে বৃষ্টি নিত্য দিনকার ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। একের পর এক ভাসিয়ে দিচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। এই বৃষ্টি আর কতক্ষণ ভালো লাগে! ক্রিকেট ভক্তদের মতো ক্রিকেটাররাও তাই বিরক্ত। টাইগাররা তাই টনটনের কাউন্টি গ্রাউন্ডে বৃষ্টির মধ্যেই নেমে পড়েন অনুশীলনে। সেরে নেন ওয়ার্ম আপ।

ব্রিস্টলে বৃষ্টির কারণ শ্রীলংকার বিপক্ষে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি হয়নি। সেখান থেকে টনটনে এসে দু’দিন মাঠে নামেননি মাশরাফিরা। ছুটির আমেজে ছিল দল। শুক্রবারই প্রথম মাঠে আসা। ঠান্ডায় জমে যাওয়া শরীরের আড়মোড় ভাঙা, অনুশীলন সঙ্গে টনটনের এই মাঠের সঙ্গে মাশরাফিদের পরিচিতির একটা ব্যাপার ছিল। কারণ ইংল্যান্ডের এই মাঠে আগে কখনো খেলেনি টাইগাররা।

২০১০ সালে রুবেল হোসেন একবার এসেছেন এখানে। বাংলাদেশ দলের বাকি সদস্যদের টনটনে আগে ম্যাচ খেলা হয়নি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে তাই মাঠের মাপ যোগ শুনে-জেনে, দেখে-বুুঝে নেওয়ার সুযোগ। ঘুরে দাঁড়াতেই হবে এমন ম্যাচের আগে দলের সদস্যদের ব্যাট-বলে নিজেদের ঝালিয়ে নেওয়ার পালা। বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ স্টিভ রোডস তাই নিজে তার শিষ্যদের গা গরম করিয়ে নিচ্ছেন।

তবে সাকিব আল হাসান এবং মোসাদ্দেক হোসেন দলের সঙ্গে অনুশীলনে ছিলেন না। সাকিব ব্রিস্টল থেকে সরাসরি লন্ডনে যান ছুটিতে। তাছাড়া তার ঊরুর চোট আছে। যদিও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিনি খেলবেন বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে ঊরুর চোট মানে বিশ্রাম তার সেরে ওঠার সেরা ওষুধ।

টাইগাররা অনুশীলনের জন্য সেন্ট্রাল উইকেটে নেট টানায়। ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন হয় সেখানে। তবে পেসারদের জন্য বৃষ্টির মধ্যে অনুশীলন করা ছিল কঠিন। বৃষ্টি জোরে না হলেও টনটনের কাউন্টি গ্রাউন্ডের মাঠের আউটফিল্ড ছিল ভেজা। পেসারদের চোটে পড়ার তাই সম্ভবনা থেকে যায়।

এর আগে টনটনের মাঠের আয়তনের কথা উল্লেখ করে প্রতিবেদন করা হয়েছে। জানানো হয়েছে, এখানে ভালো করা বাংলাদেশ দলের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে। প্রতিপক্ষ আবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো হার্ডহিটার ব্যাটসম্যানরা। তবে বাংলাদেশ দলের ক্যারিবিও কোচ কোটলি ওয়ালস জানান, মাঠ ছোট হলেও তারা চিন্তিত না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তারা পরিকল্পনা সাজিয়ে রেখেছেন। সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হওয়া শেষ চার ম্যাচের জয় বাংলাদেশ দলের বাড়তি অনুপ্রেরণা।

এসবি/এআইআর