দুপুর ২:৪০ শুক্রবার ১৫ নভেম্বর, ২০১৯


ফেসবুক লাইভে একসঙ্গে মাশরাফি ও শুভাশিস

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : November 8, 2017 , 5:09 pm
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

চিটাগাং ভাইকিংসের  বিপক্ষে ম্যাচে শুভাশিস রায়ের সঙ্গে মাঠের ঘটনায় সোশ্যাল মাধ্যমে তুমুল সমালোচনার মাঝে ফেসবুকে ভিডিও পোস্ট করেছেন মাশরাফি মর্তুজা।  এই ঘটনার খবর প্রকাশের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় গালাগালের শিকার হচ্ছেন শুভাশিস।  তা দেখেই মাশরাফি এই ভিডিও পোস্ট করেছেন।  তাতে তিনি সমর্থকদের এটা নিয়ে আর বাড়াবাড়ি না করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

মাশরাফি বলেন, ‘প্রথমে জেতার জন্য চিটাগাং ভাইকিংসকে অভিনন্দন। ’ যে কারনে ভিডিওটা করা কারন মনে হচ্ছে মানষের কাছে অনেক ভালোবাসা পেয়েছি।  শুভাশিষও বাংলাদেশের হয়ে খেলে, তারও ভালোবাসা প্রাপ্য।  আমি প্রেস কনফারেন্সেও বলে এসেছি যে আমি অত্যন্ত দুঃখিত যে আমার ওইভাবে রিয়েক্ট করা উচিত হয়নি।  কারন শুরুটা আমার থেকেই হয়েছে।  সে হয়তবা বলটা ধরে থ্রু করতে চেয়েছিল।   কিন্তু আমি যদি ওইভাবে রিএকশনটা না দিতাম তাহলে সে চলে যেত।  আশা করছি আপনারা জিনিসটা বুঝতে পারবেন।  আমার মনে হয় মাঠের ব্যাপার মাঠেই রাখা উচিত। ’
‘এমন না যে সে কোথা থেকে আসছে এবং খেলছে।  সে প্রমিজিং প্লেয়ার, সে অনেক লড়াই করে যুদ্ধ করে বাংলাদেশের হয়ে খেলছে।  একই সময় যা আমিও খেলছি।  আমি মনে করি আমি যতটুকু সম্মান, শ্রদ্ধা পাই তারও ততটুকু প্রাপ্য।  মাঠে যেটা হয়েছে এটা হয়েই থাকে।  কেন আমরা এটা স্বাভাবিকভাবেই নিতে পারছি না, আমি জানি না।  ’

‘আমি তার কাছে ক্ষমা চাই কারণ ও আমার ছোট ভাই।  আমার তাকে ওইভাবে বলা উচিত হয়নি।  কাজেই আপনারা এটা নিয়ে আর বাড়াবাড়ি না করে এটা এখানেই শেষ করেন। ’

প্রায় একই সময় শুভাশিসের ফেসবুক থেকে লাইভে আসেন তাসকিন আহমেদ।  মাশরাফিও ছিলেন সেখানে।  শুভাশিসকে পেছনে রেখে হাসিমুখেই সমর্থকদের ঘটনা ভুলে যেতে বললেন তারা।  এই লাইভেই মাশরাফিকে ‘সরি ভাই, সরি ভাই’ বলেন শুভাশিস।

চিটাগাং ভাইকিংসের ১৬৬ রান তাড়ায় তখন ব্যাট করছিল রংপুর রাইডার্স।  ১৭তম মাশয়াফিকে বল করছিলেন শুভাশিস ।  ম্যাচ দোলাচলে।  চিটাগাং ভাইকিংসের পেসার শুভাশিস রায়ের ইয়র্কর লেন্থের বলটা ঠেকিয়েছিলেন মাশরাফি।  বল ধরে তেড়েফুঁড়ে স্টাম্পে ছোঁড়ে মারার ভঙ্গি করেন শুভাসিশ।  মাশরাফি তাকে বোলিং প্রান্তে ফেরার ইঙ্গিত করতেই রেগেমেগে তেড়ে আসেন।  ফিল্ডার আম্পায়াররা এসে তাকে সরিয়েছেন।  তখনো চলছিল শুভাশিসের গর্জন। এমন দৃশ্যে তখন হতবাক হন সবাই।  পরে সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি জানিয়েছিলেন, এই ঘটনায় সিনিয়র হিসেবে তারই শান্ত থাকা উচিত ছিল, এমনকি শুভাশিসকে তার সরি বলাও উচিত।