রাত ১২:০৭ বৃহস্পতিবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৯


ফাহাদ হত্যাকাণ্ডে ছাত্রলীগ কাউকে প্রশ্রয় দেয়নি: লেখক ভট্টাচার্য

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : অক্টোবর ৯, ২০১৯ , ৫:৫৪ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে কাউকে প্রশ্রয় দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বুধবার (৯ অক্টোবর) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য।

তিনি বলেন, সাংগঠনিকভাবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কখনোই কোনো প্রকার সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডকে প্রশ্রয় দেয় না, উৎসাহ প্রদান করে না। সংগঠনের পরিচয়-পদবী ব্যবহার করে কতিপয় ব্যক্তির অতি উৎসাহী হয়ে সংঘটিত কোনো কর্মকাণ্ডকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ অতীতের ন্যায় বর্তমানে এবং ভবিষ্যতেও প্রশ্রয় দিবে না।

লেখক বলেন, সম্প্রতি সংঘটিত আবরার হত্যাকাণ্ডে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আবারও তা প্রমাণ করেছে। আমাদের আদর্শিক নেত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশ, ‘অপরাধীর কোনো দল নেই’ কথাটি অক্ষরে অক্ষরে পালনই আমাদের প্রধান কর্তব্য। একই সাথে এই ঘটনা পরবর্তীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ ছাত্রলীগসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে তড়িৎ, নৈর্ব্যক্তিক, নিরপেক্ষ ভূমিকা পালন ও পদক্ষেপ গ্রহণের যে নির্দেশনা প্রদান করেছেন তা থেকে বিন্দুমাত্র বিচ্যুত হবার অভিপ্রায় ও দুঃসাহস আমাদের নেই। বাংলাদেশের ছাত্রসমাজের প্রতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্পষ্ট নির্দেশনা, ‘আমার চোখে সকল অপরাধী সমান, অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতেই হবে। আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত কেউ ছাড় পাবে না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ করছি, আবরার হত্যাকাণ্ড পরবর্তীতে বাংলাদেশ সরকার, বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ দায়িত্বশীলতার পরিচয় প্রদানের পরও এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ তার সাংগঠনিক অবস্থান পরিষ্কার করার পরেও কিছু কুচক্রী মহল ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে।’

ছাত্রলীগের ব্যানার ব্যবহারের ষড়যন্ত্র চলছে বলে অভিযোগ তুলে লেখক ভট্টাচার্য বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধকরণ, বিভিন্নভাবে ধর্মীয় উন্মাদনা ছড়িয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা, দেশবিরোধী চুক্তির ধোঁয়া তুলে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশকে হেয় প্রতিপন্ন করার প্রচেষ্টা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি ও কটূক্তিমূলক বক্তব্য প্রদান প্রভৃতির মাধ্যমে কতিপয় নামসর্বস্ব, কর্মী ও কর্মসূচিবিহীন, ব্যানার নির্ভর ছাত্র সংগঠন ও সেসব সংগঠনের নেতৃবৃন্দ যে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করছে, ধারাবাহিক উস্কানির মাধ্যমে যে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে, বিগত ১১ বছরে সেশনজটবিহীন নির্বিঘ্ন শিক্ষা পরিবেশ বিনষ্টের যে ষড়যন্ত্র রচনা করছে তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কোনোমতেই মেনে নিতে পারে না। দেশের ছাত্রসমাজকে সাথে নিয়ে এসব হীন কর্মকাণ্ড সর্বাত্মকভাবে মোকাবিলা করবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

তিনি বলেন, জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত বাংলাদেশে কোনো প্রকার অন্যায় করে কেউ রেহাই পাবে সে নজির নেই। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাথে জড়িত কেউ যদি ব্যক্তি উদ্যোগে কোনো অপরাধ কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িয়ে পড়ে, তারাও বিচারের হাত থেকে রক্ষা পাবে না; অতীতেও পায়নি, ভবিষ্যতেও পাবে না।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তদারকির নামে বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদকে ডেকে নিয়ে শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে অমানবিক নির্যাতন চালায় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে নির্যাতনের মুখে নিহত হন আবরার। প্রতিবাদে আন্দোলনে নামে বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন নিহতের বাবা। গ্রেফতার হয়েছেন জড়িতরা। তবে পলাতক আছেন কয়েকজন। এ দিকে জড়িত ১১ জনকে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

 

এসবি/এমই