সকাল ৮:২৮ মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারি, ২০২০


ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া-চীনের উদ্বেগ (ভিডিও)

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯ , ১১:৪৬ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : বিদেশ
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : আবারও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার মাঝারি পাল্লার এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়। যুক্তরাষ্ট্রের এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাশিয়া ও চীন।

মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকা জানায়, যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের চুক্তির মাধ্যমে নিষিদ্ধ করা ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে রাশিয়া ও চীন।

যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে হওয়া ওই চুক্তির নাম ছিল- ইন্টারমিডিয়েট রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস ট্রিটি (আইএনএফ)। এই চুক্তির উদ্দেশ্য ছিল যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার মধ্যে অপ্রয়োজনীয় অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধ করা।

গত চার মাসের মধ্যে এ ধরনের দুটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ সম্পর্কে বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণে ওয়াশিংটন ও মস্কোর মধ্যে নতুন করে অস্ত্র প্রতিযোগিতা শুরু হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ক্যালিফোর্নিয়ার ভানদেনবার্গ বিমানঘাঁটি থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া হয়। এরপর ৫০০ কিলোমিটারেরও বেশি এলাকা পাড়ি দিয়ে সেটি প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ে।

পেন্টাগন সর্বোচ্চ কত পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে সেই তথ্য জানায়নি। তবে কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তারা যেসব ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর পরিকল্পনা করছেন সেগুলো ৩ হাজার থেকে ৪ হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিতে সক্ষম। অর্থাৎ এসব ক্ষেপণাস্ত্র সহজেই চীনে আঘাত হানতে পারবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা সম্পর্কে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র বলেন, মার্কিন প্রশাসন আইএনএফ চুক্তি ভঙ্গের প্রস্তুতি নিচ্ছে। এতে স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে, ওই চুক্তি ধ্বংসের পথে।

এ দিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের আক্রমণাত্মক মানসিকতার বিষয়টি সামনে এসেছে, যা আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

এসবি/এমই