রাত ৪:৩৬ শনিবার ২৩ নভেম্বর, ২০১৯


কলকাতায় শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি ভাঙচুর

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : March 7, 2018 , 9:34 pm
ক্যাটাগরি : বিদেশ
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : এবার পশ্চিমবঙ্গের কলকাতাতে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি ভাঙা হয়েছে। মূর্তিতে কালিও লাগানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ বুধবার দক্ষিণ কলকাতার কেওড়াতলা মহাশ্মশানের সি আর দাশ উদ্যানে। গতকাল মঙ্গলবার ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে লেনিনের মূর্তি ভেঙে ফেলে বিজেপি কর্মীরা। আজ কলকাতায় এ ঘটনা ঘটল।

শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি হিন্দু মহাসভার ও জনসংঘের প্রতিষ্ঠাতা। এই জনসংঘই পরবর্তী সময়ে বিজেপি দলে পরিণত হয়।

শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি ভাঙার ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। সরকার দ্রুত মূর্তিটি সংস্কারের নির্দেশ দিয়েছে। সে অনুযায়ী মূর্তি সংস্কারের কাজ দুপুরেই শুরু হয়েছে। আপাতত উদ্যানটি বন্ধ রাখা হয়েছে। ভারতীয় জনতা পার্টিও মূর্তি ভাঙার নিন্দা করে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, আজ সকাল আটটা নাগাদ ছয়জন যুবক ও একজন তরুণী উদ্যানের মধ্যকার শ্যামাপ্রসাদের মূর্তির সামনে স্লোগান দিতে দিতে হাতুড়ি ও ছেনি দিয়ে আবক্ষ মূর্তিটি ভাঙার চেষ্টা করেন। এ কারণে মুখের বেশ খানিকটা অংশ ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। মূর্তিতে কালিও মাখিয়ে দেয় তাঁরা। সাতজনকেই গ্রেপ্তার করেছে টালিগঞ্জ থানার পুলিশ। আটক ব্যক্তিরা নিজেদের যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী বলে দাবি করেছেন। তবে ঘটনাস্থলে পাওয়া একটি পোস্টারে রেডিক্যাল বলে একটি সংস্থার নাম উল্লেখ ছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, ত্রিপুরায় লেনিনের মূর্তি ভাঙার প্রতিক্রিয়া দেখাতেই শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি ভাঙা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার জানিয়েছেন, আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কড়া আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। এ ধরনের তাণ্ডব কোনোমতেই বরদাশত করা হবে না। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মূর্তি ভাঙার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিলেন রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং স্থানীয় কাউন্সিলর মালা রায়। ঘটনার নিন্দা করেছেন। শোভনদেব বলেছেন, কোনো রাজনৈতিক দলের এটা সংস্কৃতি হতে পারে না। লেনিনের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদে শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি ভাঙব, এটা কোনো যুক্তি হতে পারে না। এ ধরনের অপপ্রয়াস রুখে দেব।

এ ঘটনার পর বিজেপির কর্মীরা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তিতে মালা দিতে গেলে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীরা বিজেপির কর্মীদের বাধা দিলে শুরু হয় ব্যাপক মারপিট। অল্প সময়ের মধ্যেই অবশ্য টালিগঞ্জ থানার পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মঙ্গলবারই বাঁকুড়ার পাত্র সায়রে এক জনসভায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিপুরায় লেনিনের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন, মূর্তি ভাঙা গণতন্ত্রে নির্বাচিত দলের কাজ নয়। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘ক্ষমতায় এসেছেন বলে যদি মনে করেন, মার্ক্স, লেনিন, নেতাজির মূর্তি ভাঙবেন, তবে তা আমরা মেনে নেব না।’

এসবি/এসএস