রাত ৯:২২ সোমবার ১৪ অক্টোবর, ২০১৯


আবরারের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি ছাত্রমৈত্রীর

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : অক্টোবর ৭, ২০১৯ , ৯:৫২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : রাজনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ও হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানিয়েছে প্রগতিশীল ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রী।

বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর দপ্তর সম্পাদক হাসিদুল ইসলাম ইমরান প্রেরিত এক এক যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ফারুক আহমেদ রুবেল এবং সাধারণ সম্পাদক কাজী আব্দুল মোতালেব জুয়েল বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একজন শিক্ষার্থীর জন্য মাতৃকোলের মত নিরাপদ স্থান হওয়ার কথা। কিন্তু লজ্জাষ্কর হলেও সত্য বর্তমানে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো পরিণত হয়েছে দলবাজ, সন্ত্রাসী, দুর্বৃত্তদের অভয়ারণ্যে। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার পরিবেশ যেমন হুমকির মুখে, তেমন সাধারণ শিক্ষার্থীরা সন্ত্রাস-দখলদারিত্বে কাছে হচ্ছে জিম্মি, বঞ্চিত হচ্ছে তাদের অধিকার থেকে।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিরাপদ নয় তা আবরার ফাহাদের মৃত্যুর মধ্যদিয়ে আবারো স্পষ্ট হয়ে উঠলো। কতিপয় ছাত্র সংগঠনের নাম-পদবীকে সাইনবোর্ড বানিয়ে অপ্রতিরোধ্যচিত্তে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে চলেছে ছাত্র পরিচয়ে থাকা সন্ত্রাসী-খুনিগুলো। অন্যদিকে দেশের যে বিচারহীনতার সংস্কৃতি তৈরী হয়েছে তা এদের উৎসাহ যোগাচ্ছে। এর অবসান হওয়া দরকার। নইলে বারবার ফাহাদরা আততায়ীদের হাতে খুন হবে, পরিবারগুলো হবে সন্তানহারা।

বিবৃতিতে তারা আবরার হত্যার বিচার দাবি করে আরও বলেন, শিক্ষাঙ্গনকে সন্ত্রাস-দখলদারিত্বমুক্ত, নিরাপদ এবং শিক্ষার্থীবান্ধব করতে দল-মত বিবেচনার উর্ধ্বে গিয়ে করে কঠোর হস্তে বিচার নিশ্চিত করতে না পারলে রক্তপাত-খুন জখমের এই অপসংস্কৃতিকে প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে না। তাই আবরার ফাহাদ হত্যার সাথে যে বা যারাই জড়িত থাকুক না কেন অনতিবিলম্বে বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী তাদের বিচার দাবি করছে।

একইসাথে আবরার হত্যাকান্ডের দায় কোনভাবেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এড়িয়ে যেতে পারে না। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলের দায়িত্বশীলদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানায় স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্বদানকারী সংগঠনটি।

এসবি/এমই