সন্ধ্যা ৬:৩৮ বুধবার ২০ নভেম্বর, ২০১৯


আঘাত হানছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’, পশ্চিমবঙ্গে সতর্কতা

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : November 9, 2019 , 11:57 am
ক্যাটাগরি : বিদেশ
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : ভয়ঙ্কর থেকে অতি ভয়ঙ্কর রূপ নিয়ে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ ও ভারতের দিকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। শনিবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যার পর যা দেশ দুটির উপকূলে আঘাত হানতে পারে। যে কারণে এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে সতর্কতা জারি করেছে স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এরই মধ্যে ফুঁসে উঠছে সমুদ্র। পশ্চিমবঙ্গের উপকূল থেকে আর মাত্র ১৯০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে প্রলয়ঙ্করী এই ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান। তাছাড়া ওড়িষ্যার পারাদ্বীপ থেকে ‘বুলবুল’ আছে মাত্র ১১০ কিলোমিটার দূরে। যে কারণে মারাত্মক রকমের উত্তাল হয়ে উঠেছে সমুদ্র।

এ দিকে বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, ‘বুলবুল’ উপকূল অতিক্রমকালে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার পর্যন্ত থাকতে পারে। আর বাতাসের গতিবেগ সর্বোচ্চ উঠতে পারে ১৪৪ কিলোমিটার। বর্তমানে বঙ্গোপসাগরে বুলবুলের ঘূর্ণনের গতিবেগ ঘণ্টায় ১২০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার। যদিও উপকূল অতিক্রমের আগে এটি কিছুটা দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

যদিও পশ্চিমবঙ্গে অবস্থানরত বিদেশি পর্যটকদের জন্যও জারি করা হয়েছে বিশেষ সর্তকতা। যার অংশ হিসেবে স্থানীয় সমুদ্র তীরবর্তী পর্যটনকেন্দ্রগুলো যেমন- দীঘা, বকখালি, তালসারি শংকরপুর, মন্দারমনি, সাগরদ্বীপকে এরই মধ্যে ফাঁকা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অপর দিকে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, শনিবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ দেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। যার প্রভাবে মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে প্রথমে ৭ নম্বর বিপদ সঙ্কেত দেখানো হলেও এখন তা পরিবর্তন করে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত করা হয়েছে।

এমনকি উপকূলীয় জেলা ভোলা, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো এই মহাবিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে।

তাছাড়া চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সঙ্কেত নামিয়ে তার পরিবর্তে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। যেখানে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেতের আওতায় থাকবে।