ভোর ৫:২৩ রবিবার ১৭ নভেম্বর, ২০১৯


অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে যারা আঘাত করছে তাদের প্রতিহত করতে হবে

নিউজ ডেস্ক | সাহেব-বাজার২৪.কম
আপডেট : March 30, 2018 , 10:24 pm
ক্যাটাগরি : জাতীয়,রাজনীতি,শীর্ষ খবর
পোস্টটি শেয়ার করুন

সাহেব-বাজার ডেস্ক : অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশের ওপর যারা বারবার আঘাত করছে তাদের প্রতিহত করতে হবে। যারা বাংলাদেশকে রক্ষা করছে তাদেরকে হত্যা করতে চায় ষড়যন্ত্রকারিরা। খালেদা জিয়া’র বিএনপি ও জামায়াত শিবির দেশটাকে অস্থিতিশীল করে তুলতে আবারো ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এদেশের মানুষকে নিয়ে তা প্রতিহত করতে হবে।

শুক্রবার বিকেলে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে ১৪ দলের সমাবেশে বক্তরা এসব কথা বলেন। সমাবেশে হত্যা, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, ষড়যন্ত্র এবং বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলাসহ সকল সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন বিভিন্ন দলের নেতারা।

সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি মন্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। এতে আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধূরী, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি ও জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি সহ ১৪ দলের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করেন।

মোহাম্মদ নাসিম তার বক্তব্যে বলেন, যথা সময়ে নির্বাচন হবে। নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতায় যাওয়া যায় না। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে বলেই যথা সময়ে নির্বাচন হবে। তিনি আরো বলেন তত্বাবধায় সরকার এ দেশে আর কোন দিন আসবে না। এজন্য সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে।

২০১৪ সালে নির্বাচন না হলে এদেশে এখনো সামরিক শাসন থকতো। তিনি বলেন খালেদা জিয়া জ্বালাও পোড়াও করে ক্ষমতায় আসতে চায়। খালেদা জিয়া ও জামায়াত শিবিরের সকল প্রকার চক্রান্ত নস্যাত করে দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে উন্নয়ন হয়েছে। এদেশ থেকে মঙ্গা নামক শব্দটি চলে গেছে। বিদ্যুৎসহ অন্যান্য সমস্যার সমাধান হয়েছে।

মোহাম্মদ নাসিম জাতীয় পার্টি ও দলের চেয়ারম্যান এরশাদের উদ্দেশ্যে বলেন এরশাদ ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের পুরস্কৃত করেছিলেন। আগামী নির্বাচনে রংপুরেও লাঙ্গল মার্কাকে কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। রংপুরে আওয়ামী লীগ নৌকা মার্কা প্রার্থী দিবে।

তিনি বিএনপি’র উদ্দেশ্যে বলেন বিএিনপি আন্দোলনের ভয় দেখায়। আন্দোলন শিখতে হলে ১৪ দলের কাছে শিখতে হবে। আন্দোলন কাকে বলে ১৪ দল জানে। জেল জুলুম নির্যাতন সহ্য করার ক্ষমতা ১৪ দলের আছে।

তিনি খালেদা জিয়ার অসুস্থা সম্পর্কে নাসেম বলেন খালেদা জিয়া যদি সত্যি অসুস্থ হয় তা হলে আমি স্বাস্থ্য মন্ত্রী হিসেবে বলছি তার চিকিৎসার সব কিছু আমি বহন করবো।

সমাবেশে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি বলেন, অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশে গড়তে ১৪ দলের সম্পীতিকে আরো মজবুত করতে হবে।

আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধূরী বলেন, খালেদা জিয়ার আইনজীবী হিসেবে যাকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে সে যুদ্ধাপরাধিদের পক্ষ নিয়েছিল। বিএনপি’ নতুন ভাবে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এ ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বির্নিমানে এগিয়ে যেতে হবে।

রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কোষাধক্ষ্য এইচ এন আশিকুর রহমান এমপি, টিপু মুন্সি এমপি, গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা শাহদাৎ হোসেন, জাসদ একাংশের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আলম প্রধান, রংপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড ছফিয়া খাতুন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড রেজাউল করিম রাজু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

এসবি/এসএস